ইউটিউব থেকে আয়

2022 সালে ইউটিউব থেকে আয় করার উপায় কি ? বিস্তারিত জানুন

ইউটিউব থেকে আয় ২০২২

আজ আমরা জানব ইউটিউব থেকে আয় করার উপায়, কি উপায়ে ইউটিউব থেকে আয় করা যায়, ইউটিউব থেকে কীভাবে আয় করব বা কি কি উপায় এ ইউটিউব থেকে  আপনি টাকা ইনকাম করতে পারবেন। যদি আপনি অনলাইনে টাকা ইনকাম করার সহজ রাস্তা খুজে থাকেন তাহলে ধরে নিন যে আপনি আসল জায়গায় এসে গেছেন। আজ আমি শুরু থেকে শেষ পযন্ত ইউটিউব থেকে টাকা ইনকাম করার উপায় তুলে ধরব ।শুধু একটু সময় নিয়ে এই ব্লগটি পড়ে যান। আশা করছি আপনার অনেক উপকারে আসবে।ইউটিউব থেকে আয়

একনজরে দেখে নিই আপনি কি জানতে পারবেন এই ব্লগ থেকে 

  • কেন ইউটিউব শুরু করবেন
  • ইউটিউব শুরু করার জন্য আপনার যোগ্যতা কি কি থাকতে হবে?
  • ইউটিউব কি আপনার জন্য ?
  • কীভাবে ইউটিউব চ্যানেল খুলব ?
  • ইউটিউবে আপনি কি নিয়ে কাজ করবেন ?
  • ইউটিউব থেকে কিভাবে আয় হয়?
  • ইউটিউব থেকে কত টাকা আয় করা যায় ?
  • ইউটিউব এ আমি কি নিশ নিয়ে কাজ করব?
  • ইউটিউব এ কাজ করার কতদিন পর আপনার ইনকাম হবে?

কেন ইউটিউব শুরু করবেন

আমার দেখা অনেক ফ্রেন্ড আজ ইউটিউব করে তাদের সংসার পরিচালনা করছেন। বিশ্বাস করেন যাদেরকে একসময় শুধু উপহাস করত সবাই। কিন্তু তারা আজ অনেক দূর নিজেকে নিয়ে গেছে।দিন যত গড়াচ্ছে দিন দিন মানুষ টেকনোলজির দিকে আগাচ্ছে। তাই টেকনোলজির এই সময় আপনি কেন নিজেকে দূরে সরিয়ে রাখবেন। ইউটিউব শুরু করার একটা বড় কারণ হচ্ছে আপনি কারুর সরণাপন্ন হলেন না। আপনার যখন ইচ্ছা তখন কাজ করতে পারবেন। কিন্তু আপনাকে চাকুরী করতে হলে সামান্য ৫০০০ টাকার জন্য সময় মত অন্যর কথা মেনে চলতে হবে। এটা একটা বুরিং লাইফ। তাছাড়া চাকুরীর বাজার এখন আগুন তা ত আপনি খুব ভাল করেই জানেন।

ইউটিউব শুরু করার জন্য আপনার যোগ্যতা কি কি থাকতে হবে?

অনলাইনে টাকা আয় করার জন্য যতগুলো সেক্টর রয়েছে তার মধ্যে সবচেয়ে সহজ মাধ্যম হল ইউটিউব। মিনিমাম কিছু যোগ্যতা আপনার থাকা লাগবে। তা হল ইংরেজী মোটামোটি জানা।খুব বেশী ভাল করে জানতে হবে তা নয় তবে ভাল জানলে আপনি আরও ভাল কিছু করতে পারবেন।

ইউটিউব কি আপনার জন্য ?

ইউটিউব আপনার জন্য না কিংবা হ্যা কিভাবে বুজবেন? খুব সহজ । আপনি যদি একজন দশম শ্রেণীর স্টুডেন্ট হয়ে থাকেন তাহলে অবশ্যই আপনার জন্য ইউটিউব না।তার কারণ ইউটিউব আপনার পড়াশুনার অবশ্যই ক্ষতি করবে। তাই বলে ত আর কেউ বসে নেই । যে কেউ এখন ইউটিউব শুরু করে দিচ্ছে।তবে ইউটিউবে লেগে থাকলে আপনার ক্যারিয়ার হবে এটা সিউর। সময় হয়ত কারোর কম আর কারোর বেশী লাগবে ।

কীভাবে ইউটিউব চ্যানেল খুলব ?

ইউটিউব থেকে টাকা আয় করার একমাত্র উপায় হল আপনার ভিতরে ইউনিক ভিডিও তৈরী করার ক্ষমতা থাকতে হবে। অন্য কারুর ভিডিও আপনি ব্যবহার করতে পারবেন না। আপনার নিজের ভিডিও আপনার চ্যানেলে আপলোড করতে হবে।

এতে করে আপনি ইউটিউব চ্যানেল থেকে টাকা আয় করার যেই শত রয়েছে তা যদি আপনি পুরন করতে পারেন তাহলে আপনার টাকা আসা শুরু হবে। টাকা ইনকাম করার যোগ্য করে তুলার শত হল আপনার চ্যানেলে ৪০০০ ঘন্টা্ ওয়াচটাইম এবং ১০০০ সাবস্ক্রাইব পূরন হলেই আপনি টাকা ইনকাম করার জন্য যোগ্য। মানে হচ্ছে আপনার ভিডিও গুলো মানুষ ৪০০০ ঘন্টা দেখতে হবে।ইউটিউব থেকে আয়

তাছাড়া ও আপনি ইউটিউব থেকে গুগল এ্যাডসেন্স ছাড়াও অনেক উপায় এ আপনি টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

এবার ব্লগটির মূলকথা আলোচনা করি । প্রথমে আপনার একটি ইউটিউব চ্যানেল খোলা লাগবে তারপর সেখানে আপনার নিজের ভিডিও আপলোড করে গুগল এ্যাডসেন্স এর যোগ্য করে  তুলতে হবে। তারপর আপনি টাকা ইনকাম করার জন্য প্রস্তুত হবেন। কিভাবে একটি ইউটিউব চ্যানেল খুলবেন আপনি যদি তা না জেনে থাকেন তাহলে এইখানে ক্লিক করে জেনে নিন কিভাবে ইউটিউব চ্যানেল খোলা যায়।আরও জানুন : ইউটিউব মনিটাইজেশন ২০২০

ইউটিউবে আপনি কি নিয়ে কাজ করবেন ?

অনেকেই এটা নিয়ে বেশ চিন্তিত দেখা যায়, বা এমন অনেক প্রশ্ন আসে ভাই আমি ত সবই বুঝলাম কিন্তু আমি কি নিয়ে কাজ করব। এটা ই বেশ মুশকিলে ফেলে দিল। চিন্তার কোন কারণ নেই। সহজ ভাষায় আপনাকে আমি যদি বলতে হয় আপনি যেটা বেশী ভাল পারেন বা করতে ভালবাসেন সেটা নিয়ে ই আপনি একটি চ্যানেল চালিয়ে যেতে পারবেন।

আপনাকে আগে নিজেকে প্রশ্ন করতে হবে আমি কোন বিষয়ে অভিজ্ঞ। সেটা যদি আপনি খুজে বের করতে পারেন তাহলে আপনার ৮০% কাজ শেষ। এবার আসুন একটি উদাহরণ এর মাধ্যমে আপনাকে বিষয়টি আরো পরিষ্কার করি। ধরুণ আপনি একজন গেম লাভার ।

সারাক্ষণ গেমস খেলতে পছন্দ করেন। তাহলে এটা ই আপনার ভাল লাগা। আর এটা নিয়ে ই আপনি ভিডিও তৈরী করে সেখান থেকে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিতে পারেন। শুধু মাত্র আপনি যখন গেমস খেলেন সেই গেমসটি স্ক্রীন রেকড করে ইউটিউবে আপলোড করে ই খালাশ।

শুধু এভাবে ই অনেকে লক্ষ লক্ষ টাকা ইনকাম করছে।কিভাবে স্ক্রিন রেকড করে ভিডিও মেক করবেন তা জানতে হলে আমার এই ব্লগটি পড়ে আসুন। স্ক্রিন রেকড করে কীভাবে ভিডিও তৈরী করবেন।  আশা করছি আপনি বিষয়টি বুঝতে পারছেন। আবার ধরেন আপনি আইটি বিষয়ে খুব অভিজ্ঞ। আপনিও কম্পিউটার বিভিন্ন বিষয়ে ভিডিও তৈরী করে ইউটিউবে আপলোড করে ইনকাম করতে পারেন।

আপনার প্রতি আমার সাজেশন হল আপনি কারুর কথা না শুনে আগে আপনার প্রতিভা টি খুজে বের করুন। ভাবুন ও নিজেকে অনেক সময় দেয়ার চেষ্টা করুন। তাহলে দেখবেন আপনি পেয়ে গেছেন।তবে অমুক এই বিষয়ে ভাল ইনকাম করছে আবার তমুক ভাই মাসে ১০০০ ডলার আয় করছে এই কাজ করে ইত্যাদি ইত্যাদি। আপনি কারুর কথা ই শুনার দরকার নাই।

আপনি আপনার মত কাজ করে যান। দেখবেন একদিন সফল হবেন। আর অনলাইন ইনকাম রিলেটেড যেকোন সমস্যা হলে আপনি কমেন্ট অথবা এই গ্রুপে আমাকে মেসেজ দিতে পারেন । আমি অবশ্যই আপনার সমস্যা সমাধান করার চেষ্টা করব।

[ইউটিউব থেকে আয় করার উপায়]

ইউটিউব থেকে কিভাবে পেমেন্ট নিবেন 

আমি আগে ই বলেছিলাম আপনার ইউটিউব চ্যানেল তখন ই টাকা ইনকাম করবে যখন তাদের সব শত পূরণ হয় ঠিক তখন ই । মানে আপনি যখন আপনার্ ইউটিউব চ্যানেলটিতে ১০০০ সাবস্ক্রাই ব এবং ৪০০০ ঘন্টা ওয়াচটাইম ফূলফিল করে ফেলবেন।

ঠিক তখন মনিটাইজেশনের জন্য আপনি তাদের কাছে আবেদন করতে হবে। সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে তারা আপনাকে মনিটাইজেশন দিয়ে দিবে। এতে আপনার একটি এডস্যান্স একাউন্ট ও তৈরী হবে যার কাছে আপনার ভিডিওগুলোর উপর এড দেয়ার জন্য ইউটিউব কিছু কমিশন রেখে বাকিটা এখানে জমা হবে। নিচের স্ক্রিন সট টি দেখুন।

তাহলে বুঝতে পারবেন বিষয় টি। তারপর আপনার একাউন্টে যখন ১০ ডলার জমা হবে ঠিক তখন আপনার ঠিকানা বরাবর তারা আপনাকে এই এডস্যন্স একাউন্টি ভেরিফাই করার জন্যে পত্র দিবে যার মধ্যে একটি পিন নম্বর থাকবে। এটির মা্ধ্যমে আপনার এডস্যান্স একাউন্টি ভেরিফাই করে নিতে হবে।

এবার সব কাজ শেষ মাস শেষে যখন আপনার একাউন্টে ১০০ ডলার ইনকাম হবে ঠিক তখন ই তাদের সময় অনুযায়ী টাকা গুলো আপনার ব্যাংক একাউন্টে জমা হবে। শুরুর দিকে অনেকটা কষ্ট হলেও যখন সবকিছু ঠিকঠাক হয়ে যাবে তখন শুধু বসে বসে খাবেন।তবে আপনাকে অনেক পরিশ্রম করতে হবে । হাল ছেড়ে দিলে কখন ই আপনি সফলতা পাবেন না।

আপনি যদি ইংরেজীতে খুব পটু হয়ে থাকেন তাহলে পড়ে আসতে পারেন সফলতার ২০০ এর উপরে উক্তি যেগুলো আপনাকে আরও মোটিভেশন করে তুলবে।এটি ও আমার ই একটি ওয়েবসাইট। এখানে আমি ইংরেজীতে সব উক্তি গুলো প্রতিদিন পোস্ট করি। সবশেষে চলুন আমরা জেনে নেই ইউটিউবের কিছু কমন প্রশ্ন যেগুলো আমি প্রায় ই পেয়ে থাকি।

ইউটিউব থেকে কিভাবে আয় হয়?

এই প্রশ্নটি প্রায় সবাই করে থাকে কম আর বেশী।একটা উদাহরণ দিয়ে বলি ধরুন আপনি কষ্ট করে ঢাকার অভিজাত এলাকায় একটি বাড়ি তৈরী করেছেন এবং ভাড়া দিচ্ছেন। তাহলে মানুষ আপনার বাড়িতে যখন ভাড়া থাকতে আসবে তারা ত আপনাকে টাকা দিতে হচ্ছে।

এই বাড়িটি হল আপনার ইউটিউব এর সকল ভিডিও ।আর এই ভিডিওগুলোতে যখন কোন কোম্পানি বিজ্ঞাপন দেয়ার জন্য ইউটিউবকে কমিশন দিবে ঠিক তখন ই ইউটিউব সেই কমিশন থেকে কিছু রেখে বাকিটা আপনাকে দিয়ে দিবে। আশা করছি বুঝতে পারছেন।যদি আরও বিস্তারিত বুঝতে চান তাহলে আমাদের ফেইবুকে আপনি লাইক দিয়ে সংঙ্গে থাকুন। তাহলে অনেক বিষয়ে আপনি জানতে পারবেন।

[ইউটিউব থেকে আয় করার উপায়]

ইউটিউব থেকে কত টাকা আয় করা যায় ?

এটা একদম কমন প্রশ্ন । সেটা ডিপেন্ট করবে আপনার ভিডিও এর কোয়ালিটি ও জনপ্রিয়তার উপর।কেউ মাসে ১০০০০ টাকা ইনকাম করে আবার কেউ এক লক্ষের ও বেশী ইনকাম করছে।

এটার কোন উত্তর নেই বললেই চলে। তবে আপনি যদি ভাল বিষয়ে ভিডিও মেক করেন আর ৫ বছর পরিশ্রম করতে পারেন তাহলে আপনি লক্ষের ঘরে পোছাতে পারবেন। তাছাড়া শুধু খেলনা দেখিয়ে রায়ানের শত কোটি টাকা কিভাবে আয় হয় তা দেখতে আপনি এই ব্লগটি পড়ুন। তাহলে আপনার চোখ খুলে যাবে ইউটিউব থেকে কত টাকা আয় করা সম্ভব।

এবার দেখে নিতে পারেন শীর্ষ ১০ ইউটিউবারের ইনকাম কেমন হয় ….

রায়ান কাজি

মাথা নষ্ট করার মত আপনি যদি রায়ান কাজির ইনকাম দেখতে চান তাহলে এখান থেকে ঘুরে আসুন :

সর্বাধিক উপার্জনকারী ইউটিউবার রায়ান কাজি

২ কোটি ৬০ লাখ ডলার

ডিউড পারফেক্ট

২ কোটি ডলার

নাসতিয়া

১ কোটি ৮০ লাখ ডলার

রেট অ্যান্ড লিংক

১ কোটি ৭৫ লাখ ডলার

জেফরি স্টার

১ কোটি ৭০ লাখ ডলার

প্রিস্টন আর্সমেন্ট

১ কোটি ৪০ লাখ ডলার

[ইউটিউব থেকে আয় করার উপায়]

ইউটিউব এ আমি কি নিশ নিয়ে কাজ করব?

এটা আপনার কোন বিষয়ে বেশী পটু সেটার উপর হয়ে থাকে।ধরেন আপনি গান গাইতে ভালবাসেন তাহলে আপনি ভিবিন্ন শিল্পীর কাভার গান করতে পারেন। যে যেই বিষয়ে পটু সে সেই বিষয় নিয়েই কাজ করলে ভাল হয়। তাই আপনি নিজেই ভাবুন আপনি কোন বিষয়ে ভাল ভিডিও তৈরী করতে পারবেন।

[ইউটিউব থেকে আয় করার উপায়]

ইউটিউব এ কাজ করার কতদিন পর আপনার ইনকাম হবে?

বেশিরভাগ নিউবি রাই এই প্রশ্ন টা করে থাকে। কারণ এমন অনেক ই আছেন যারা হুট করে একটি চ্যানেল ক্রিয়েট করেই কয়েকদিন ভিডিও আপলোড করেই হতাশ হয়ে যান ইনকাম এর জন্য। এমন হলে আপনি জীবনেও টাকা ইনকাম করতে পারবেন না ইউটিউব থেকে।যদি আপনি খুব সহজেই ৪০০০ ঘন্টা ওয়াচ টাইম এবং ১০০০ সাবস্ক্রাইব পুরন করতে পারেন তাহলে সেইদিন থেকেই মনে করবেন আপনি ইউটিউব থেকে টাকা ইনকাম করার রাস্তা তৈরী করে ফেল্লেন।

তবে আপনার ভিডিও যদি খুব জনপ্রিয় হয় তাহলে আপনি মাস দুয়েক এর ভিতর ই টাকার গন্ধ পাবেন। আর নিয়মিত কাজ করলে টানা ৬ মাসের মধ্যে টাকার স্বাদ পাবেন। অনলাইন থেকে ইনকাম করার জন্য যেকোন বিষয়ে আপনি আমাকে মেসেজ দিতে পারেন আমার ফেইজবুক পেইজ এ। আমি চেষ্টা করব আপনার সকল সমস্যার সমাধান দেওয়ার জন্য। ধন্যবাদ।

2 thoughts on “2022 সালে ইউটিউব থেকে আয় করার উপায় কি ? বিস্তারিত জানুন”

Leave a Comment

Your email address will not be published.