সুপার-কম্পিউটার-কি

সুপার কম্পিউটার কি ? কত প্রকার সুপার কম্পিউটার আছে

সুপার কম্পিউটার কি

সুপার কম্পিউটার কি আজ আমরা সে বিষয়ে খুব পরিষ্কার একটা ধারণা নিব। সুপার কম্পিউটার হল বৃহৎদাকৃতির কার্যক্ষমতা সম্পন্ন বিশেষ ধরনের একটি কম্পিউটার।বড় বড় হিসাব নিকাষের ক্ষেত্রে ও ডাটা সংগ্রহের জন্য এ কম্পিউটারগুলো ব্যবহার করা হয়।কম্পিউটার-কি

সুপার কম্পিউটার এর প্রকারভেদ

কম্পিউটারকে কয়েকভাগে ভাগ করা হয়েছে। তবে আকার আকৃতির দিক দিয়ে কম্পিউটারকে চারভাগে বিভক্ত করা হয়েছে।

১.মাইক্রো কম্পিউটার।
২.মিনি কম্পিউটার।
৩.মেইনফ্রেম কম্পিউটার।
৪.সুপার কম্পিউটার।

আমরা আজকে সুপার কম্পিউটার বিষয়ে জানব।চলুন সুপার কম্পিউটার নিয়ে কিছু তথ্য জেনে নেই।১৯৬০ সালে পৃথিবীতে প্রথম সুপারকম্পিউটার তৈরি করা হয়। সাইমর ক্রে নামক একজন ব্যক্তি এটি নির্মান করেন ।! টাইটান বিশ্বের অন্যতম বড় একটি সুপারকম্পিউটার।এর আকার একটি বাস্কেটবল কোর্টের সমান। আরও পড়ুন : কম্পিউটার কি? আধুনিক কম্পিউটারের জনক কে?

সাধারণত আমরা আমাদের দৈনন্দিন কাজের জন্য এই কম্পিউটার ব্যবহার করি না।আমরা আকৃতিতে তুলনামূলক ছোট স্বল্প দামের সহজে বহনযোগ্য কম্পিউটারগুলো ব্যবহার করে থাকি। সাধারণ কম্পিউটারগুলোর মত এগুলো সহজলভ্য নয় সর্বসাধারনের জন্য। এই কম্পিউটারগুলো সাধারণত সরকারী কাজে, বিভিন্ন গবেষণাগার ও বৃহৎপরিসরে তথ্য সংরক্ষন এবং হিসাবনিকাষের কাজে ব্যাবহৃত হয়।

সুপার কম্পিউটারগুলো অত্যন্ত শক্তিশালী হয়ে থাকে। এর ক্ষমতা পরিমাপের জন্য ফ্লপস একক ব্যাবহার করা হয়। এই এককটি শুধুমাত্র বড় কম্পিউটারের গতি মাপার জন্যই ব্যাবহৃত করা হয়। এই কম্পিউটার আবহাওয়া, জলবায়ু,গাণিতিক হিসাব,জ্যোতির্বিদ্যা,বর বড় গবেষণা, পদার্থবিজ্ঞানের গবেষণায়, বর বড় হিসাব নিকাশ ও তথ্য সংরক্ষণের কাজে ব্যবহার করা হয়।এছাড়াও মহাকাশ গবেষণাকেন্দ্রেও ব্যপক কাজে এই কম্পিউটার ব্যবহার করা হয়।এই কম্পিউটারের রক্ষনাবেক্ষণ প্রক্রিয়া বেশ জটিল।এই কম্পিউটার অনেক তাপ উৎপাদন করে থাকে এজন্য এটি ঠান্ডার করার জন্য প্রচুর ঠান্ডা বাতাস দরকার।এজন্য অনেক বিদ্যুৎ খরচ হয় এসি বা হিমায়িতকরন প্রক্রিয়ায়।

Leave a Comment

Your email address will not be published.