একজন সফল ইউটিউবার (Successful Youtuber) হতে কি কি লাগে ?

একজন সফল ইউটিউবার (Successful Youtuber) হতে কি কি লাগে আজ আমি তা নিয়েই সারাদিন বক বক করব। বর্তমানে আমরা অনেকেই ইউটিউবের থেকে টাকা আয়ের উদ্দেশ্যে একটি YouTube চ্যানেল বানিয়ে তাতে ভিডিও আপলোড শুরু করে দেই , হয়তো ঠিক আপনিও এই মূহুর্তে এটাই  করে যাচ্ছেন ।কিন্তু, কিছুদিন মন দিয়ে কাজ করার পর হয়তো আমরা নিরাশ হয়ে ইউটিউবে কাজ করা ছেড়ে দেই।।একজন সফল ইউটিউবার

তার কারণ, আপনি  যখন ভিডিও আপলোড করেন তার ফলাফল সরুপ আপনি যথেষ্ট ভিউস (views) বা সাবস্ক্রাইবার (subscribers) পাচ্ছেন না ।আজ আমি আপনাদের এমন কতগুলো টিপস শেয়ার করব যা ফলো করলে আপনি খুব কম সময়ে একজন সফল ইউটিউবার পরিণত হবেন। যা আমি হরফ করে বলে দিতে পারি।

আসুন দেখে নেই এই টিউটিরিয়াল এর মধ্যে আপনাকে আমি কি কি ধারণা দিচ্ছি :

  • ইউটিউবে সফল হতে হলে সর্বপ্রথম আপনার কোন জিনিসটি প্রয়োজন
  • আপনার লক্ষ্য এবং কন্টেন্ট ঠিক করুন
  • কীভাবে ভিডিও টপিক সিলেক্ট করবেন
  • লম্বা ভিডিও তৈরী করা
  •  আকর্ষনীয় থাম্বনেইল তৈরী করা
  • নিয়মিত ভিডিও আপলোড করা
  • স্যোশাল মিডিয়ায় সক্রিয় থাকা

ইউটিউবে সফল হতে হলে সর্বপ্রথম আপনার কোন জিনিসটি প্রয়োজন

সফল ইউটিউবার হতে হলে আপনার সর্ব প্রথম যে জিনিসটা মাথায় রাখতে হবে সেটা হলে আপনার মনের উপর বিশ্বাস, ইচ্ছা ও ধৈর্য্যশক্তি। এগুলো যদি আপনি ফলো করে কাজ করেন তাহলে আমি নিশ্চিত আপনি ইউটিউবে একদিন না একদিন ‍সাকসেস হবেন ই হবেন।

আপনার যদি বিশ্বাস না হয় তাহলে আমি ইউটিবের সার্চ বক্সে গিয়ে টাইপ করুন ইউটিউব আর্নিং প্রোফ অথবা আমি ইউটিউব থেকে কত টাকা পেলাম বা আয় করি। দেথবেন এমন অনেক ভিডিও চলে আসবে আপনার সামনে যেগুলো ১ বছর, ২ বছর, এমনকি ৩ বছরের পর পেমেন্ট পাইছে। এখানে ধৈর্য্যর কোন বিকল্প নেই।একজন সফল ইউটিউবার খুব ভাল করেই এই বিষয়টি জানেন।একজন সফল ইউটিউবার

কিন্তু আপনি যদি একবার Success হয়ে যেতে পারেন তাহলে আপনাকে আর পিছনে ফিরে তাকাতে হবে না ভিলিব ইট অর নট।বাংলাদেশে এমন অনেকেই আছে যারা খুব অনায়াসেই মাসে একলক্ষ টাকার ও বেশী ঘরে বসে উর্পাজন করছে শুধুমাত্র এই ইউটিউব থেকে। এজন্য ই বলছি প্রয়োজন শুধু বিশ্বাস যে আপনি পারবেন। মনে রাখবেন ভীতুরা মরার আগেই মরে। একজন সফল ইউটিউবার হওয়া খুব সহজ কথা নয়। বছরের পর বছর সাধনা করার পর মনের মধ্যে একটা ভাব আসে যে হে আমি একজন সফল ইউটিউবার।

১. আপনার লক্ষ্য এবং কন্টেন্ট ঠিক করুন

যে কোন কিছুতে সফল হওয়ার জন্য পূর্ব শর্ত হল সঠিক লক্ষ্য নির্ধারণ করা এবংইউটিউবের ক্ষেত্রে তো তা লক্ষ্য নির্ধারণ করা অতি জরুরী। কেননা আপনি হয়ত জানেন না প্রতি মিনিটে ইউটিউবে তিনশত ঘণ্টার ভিডিও আপলোড হয়ে থাকে । তাহলে এখন আপনি যদি সঠিক লক্ষ্য এবং কন্টেন্ট নির্ধারণ না করেন, তাহলে এত সব ভিডিওর মাঝে আপনার ভিডিও জনপ্রিয় করা কতটা কস্টকর হবে তা তো আপ বুঝার বাকি নেই। তাই আপনি যে বিষয়ে দক্ষ সে বিষয়ের উপর ভিডিও কনটেন্ট তৈরির উপর মনোযোগী হতে পারেন।

২) কীভাবে ভিডিও টপিক সিলেক্ট করবেন

সর্বপ্রথম বলে রাখি আমি এই আর্টিকেলে আমি শুধু আমার ব্যক্তিগত মতামত তুলে ধরেছি। আমি সাধারনত ভিডিও টপিক সিলেক্ট করার আগে আমার চাহিদা কি, কোন বিষয়ে আমার প্রবল ইচ্ছা আছে সেটা খেয়াল করে আমি আমার ভিডিও টপিক সিলেক্ট করেছি। ধরুন আপনি খুব সুন্দর গান গাইতে পারেন এখন গান নিয়ে আপনার একটা ইউটিউব চ্যানেল খুলতে পারেন তেমনি কেউ কেউ ড্যান্স করতে পারে সেক্ষেত্রে সে ড্যান্স বিষয়ে একটা ইউটিউব চ্যানেল তৈরী করতে পারে । আশা করছি বুজতে পারছেন কোন নিশ নিয়ে আপনি একটি ইউটিউব চ্যানেল শুরু করতে পারেন। আপনাকে এমন একটি টপিক সিলেক্ট করতে হবে যেটা সম্পর্কে আপনার খুব ভাল দাপট আছে। যেটা নিয়ে আপনি অনেক অনেক ভিডিও তৈরী করতে পারেন। 

আরো পড়ুন : ইউটিউব চ্যানেল খোলার নিয়ম 

৩) লম্বা ভিডিও তৈরী করা

আমার দীর্ঘদিনের সফলতায় আমি যা খেয়াল করলাম সেটা হল যেই ভিডিওগুলো বেশিরভাগ ভাইরাল হয়েছে সেগুলো হল লম্বা সময়ের ভিডিও । সেগুলো ৫ মিনিটর বেশী সময়ের । তাই আমার সফলতায় অনুযায়ী আমি বলব আমি যখন ভিডিও তৈরী করবেন তখন ১০ মিনিটের বেশী সময় নিয়ে ভিডিও তৈরী করবেন । মানে আপনার ভিডিও এর টোটাল সময় হবে ১০ মিনিটের উপরে।

৪)  আকর্ষনীয় থাম্বনেইল তৈরী করা

একটি সুন্দর আকর্ষনীয় থাম্বনেইল আপনার ভিডিওর জনপ্রিয়তা আরো বেড়ে যাবে । আপনি যদি জেনে না থাকেন কীভাবে একটি সুন্দর ও আকর্ষনীয় থাম্বনেইল তৈরী করতে হয় তাহলে এখানে ক্লিক করে পুরো আর্টিকেলটি পড়ে আসুন। তাহলে আপনি একটি সুন্দর ও আর্কর্ষনীয় থাম্বনেইল তৈরী করতে পারেবেন কোন প্রকার চিন্তা ছাড়াই।

এবার আসা যাক মূল বিষয়ে আপনার ভিডিও এর মূল বিষয়ের একটি লাইন নিয়ে আপনার ভিডিও এর থাম্বনেইল তৈরী করুন। তবে খেয়াল রাখতে হবে আপনার ভিডিও এর বিষয় ছাড়া যেন অন্য কোন বিষয় না দেয়া থাকে তাহলে আপনি ইউটিউবের গাইড লাইন অমান্য করলেন। সেক্ষেত্রে আপনার ইউটিউব চ্যানেলটি যেকোন সময় সাসপেন্ড হয়ে যাবে যা আপনি আর কোনদিন ও ফিরে পাবেন না।

Read More : ইউটিউব থাম্বনেইল তৈরী করুন খুব সহজেই

৫) নিয়মিত ভিডিও আপলোড করা

পৃথিবীর সব বড় বড় ইউটিউবাররা এটাকে মূলমন্ত্র হিসেবে গণ্য করে। আপনি যখন ই ভিডিও আপলোড দিবেন একই সময়ে আপলোড দিবেন যা আপনার ভিউয়ারের সংখ্যা দিন দিন বৃদ্ধি পাবে পাশাপাশি সাবস্ক্রাইবের সংখ্যা ও বাড়বে। তবে আপনাকে মনে রাখতে হবে সব ভিডিও ভাইরাল হবে না ।আপনার কাজ হচ্ছে নিয়মিত প্রতিদিন একই সময়ে ভিডিও আপলোড করা । দেখবেন আগামী ৬ মাস পর আপনার চ্যানেল একটা পজিশনে চলে গেছে। 

৬. ট্রেন্ড অনুসরণ করুন..

আপনার চ্যানেল এর সাথে মিল রেখে ভাইরাল টপিক খুজুন।অনেক সময় বেশ কিছু ভাইরাল টপিক থাকে। সে-সব ভাইরাল টপিকের উপর ইউটিউবে প্রচুর সার্চ হয়। সুতরাং সেই সময় যদি আপনি ইউটিউব ভাইরাল টপিকের উপর ভিডিও তৈরি করতে পারেন তাহলে খুব সহজেই আপনার চ্যানেলের ভিডিও ভিউ বেড়ে যাবে এবং অনেক উপরে চলে যাবে আপনার চ্যানেলটি । বাংলাদেশে এমন অনেক ইউটিউবার রয়েছে যারা শুধুমাত্র ভাইরাল টপিক নিয়ে কাজ করে থাকে। বিষয়টি আমি আর একটু পরিষ্কার করে বলি মনে করেন আমি এখন ব্লগ লিখতেছি ঠিক এমন সময় বর্তমানে সবাই করোনা ভাইরাস নিয়ে মাতামাতি করছে সো এখন আপনি যদি এটি নিয়ে এখন একটি ভিডিও তৈরী করেন তাহলে আপনি অবশ্যই ভিডিওতে বেশী বেশী ভিউ পাবেন। আশা করছি বিষয়টি পরিষ্কার হয়েছে। বর্তমানে ট্রেন্ড অনুসরণ করার জন্য আপনাকে গুগল ট্রেন্ড ব্যবহার করতে হবে। সরাসরি এখানে ক্লিক করে ঘুরে আসুন গুগল ট্রেন্ড এ। এখানে আপনি যকোন দেশের ট্রেন্ডিং টপিক গুলো খুজে পাবেন।

স্যোশাল মিডিয়ায় সক্রিয় থাকা

ফেসবুক, টুইটার, ইনস্টাগ্রাম প্রভৃতি জনপ্রিয় সোশ্যাল মিডিয়াতে আপনাকে সবসময় এক্টিভ থাকতে হবে এবং বেশী বেশী করে আপনার ভিডিও গুলো শেয়ার করতে হবে । কেননা এইসব সোশ্যাল মিডিয়া থেকে প্রচুর পরিমাণে ভিউয়ার এবং সাবস্ক্রাইবার আনা সম্ভব। ফলে আপনি দ্রুত সফলতা লাভ করতে পারবেন। তাই চেষ্টা করবেন আপনার চ্যানেলের নামে পেইজ এবং গ্রুপ তৈরি করে একটা সক্রিয় কমিউনিটি তৈরি করার। আশা করছি আপনার ইউটিউব চ্যানেলটি খুব দ্রুত এগিয়ে যাবে। 

শেষ কথা : আপনাকে উপরোক্ত নিয়ম গুলো অনুসরন করে চলতে হবে। আশার করা যায় আপনি একদিন ইউটিউবে সাকসেস হবেন ই হবেন । কোনে দিকে না তাকিয়ে আজ থেকেই আপনি শুরু করে দিন। যদি শুরু ই না করেন তবে শেষ হবে কীভাবে। আর আমি তো আছি আপনাদের পাশে । যেকোন সময় যেকোন সমস্যা নিয়ে আমাকে কমেন্টস করুন আমি আপনাকে হেল্প করব ইনশাআল্লাহ। 

Leave a Comment

Your email address will not be published.