নগদ-একাউন্ট-দেখার-নিয়ম

নগদ একাউন্ট দেখার নিয়ম 2022 || নগদ একাউন্ট সম্পর্কে বিস্তারিত

নগদ একাউন্ট দেখার নিয়ম

স্বাগতম আপনাকে আমার নতুন আরেকটি ব্লগে। আজকে আমি আলোচনা করব নগদ একাউন্ট দেখার নিয়ম কি এবং নগদ একাউন্ট সম্পর্কে বিস্তারিত। শুরু থেকে শেষ অবদি পড়ুন তাহলে আশা করছি নগদ একাউন্ট সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পারবেন।

নগদ হল একটি মোবাইল ফোন ভিত্তিক ডিজিটাল আর্থিক পরিষেবা বাংলাদেশ ডাক বিভাগের বাংলাদেশের ডাক, টেলিযোগাযোগ এবং তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের অধীনে যা একটি মানি এক্সচেঞ্জ পরিষেবা। এটি থ্রেড ওয়েভ টেকনোলজি লিমিটেড দ্বারা পরিচালিত হয়। এটি পোস্টাল ক্যাশ কার্ড এবং ইলেকট্রনিক মানি ট্রান্সফার সিস্টেম (EMTS) এর একটি নতুন সংস্করণ যা আগে বাংলাদেশ ডাক বিভাগ চালু করেছিল পারে।

ঢাকার বনানী এলাকার কামাল আতাতুর্ক এভিনিউতে ক্যাশের সদর দফতর।এই আর্থিক পরিষেবা বাংলাদেশ ডাক আইন সংশোধন ২০১০ এর ধারা 3 (2) এর অধীনে নিয়ন্ত্রিত হয়, বিশেষ করে বাংলাদেশ ডাক বিভাগ কর্তৃক প্রণীত একটি পৃথক আইন। এই ডিজিটাল আর্থিক পরিষেবাটি ১১ অক্টোবর ২০১৬ তারিখে বাংলাদেশ ডাক বিভাগ চালু করেছিল। এটি বাংলাদেশের 49তম স্বাধীনতা দিবস উদযাপনের মাধ্যমে ২৬ মার্চ, ২০১৯ তারিখে তার কার্যক্রম শুরু করে।

নগদ-এর সেবাসমূহ

গ্রাহকরা *18# ডায়াল করে এবং ক্যাশ অ্যাপ ব্যবহার করে এর পরিষেবাগুলি পেতে পারেন। যে কোনো নগদ অ্যাকাউন্টধারী অন্য যেকোনো স্থান থেকে নগদ অ্যাকাউন্ট এজেন্ট পয়েন্টের সাথে যে কোনো সময় তাদের অ্যাকাউন্টে পর্যাপ্ত অর্থ থাকা সাপেক্ষে এর পরিষেবাগুলি পেতে পারেন। ক্যাশ অ্যাপ ব্যবহার করে গ্রাহকরা তাদের নিজস্ব অ্যাকাউন্ট চালু করতে পারেন।

বর্তমান নগদ পরিষেবা

১.অ্যাকাউন্ট খোলা হয়েছে
২.জমা (নগদ ইন)
৩.এক ক্যাশ অ্যাকাউন্ট থেকে অন্য ক্যাশ অ্যাকাউন্টে টাকা পাঠানো (টাকা পাঠান)
৪.উত্তোলন (নগদ আউট)
৫.মোবাইলে এয়ারটাইম ক্রয়/রিচার্জ সুবিধা
৬.পণ্য বা পরিষেবা ক্রয়ের জন্য অর্থপ্রদান।
৭.বিল পরিশোধের সুবিধা।

একটা সময় ছিল যখন বাংলাদেশ ডাক বিভাগ শুধুমাত্র মায়েদের ডাক সেবা দিত। কিন্তু এখন মানুষ মেইল ব্যবহারের পরিমাণ কমিয়ে দিয়েছে। এর অন্যতম কারণ আধুনিক যোগাযোগ ব্যবস্থা।কেন লোকেরা চিঠি বা তথ্যের পরিবর্তে মেল ব্যবহার করবে যা মিনিটের মধ্যে বিশ্বের যে কোনও জায়গায় পাঠানো যেতে পারে? যে কোনো চিঠি বা মানি অর্ডার আসতে কয়েক মাস সময় লাগে তা কয়েক মিনিটের মধ্যে ডিজিটালি যেকোনো জায়গায় পাঠানো যেতে পারে।

আরও পড়ুন :

অনলাইনে আয় করার সহজ উপায়
কীবোর্ড কি? কীবোর্ড কত প্রকার ও কি কি?
বাংলাদেশের জনপ্রিয় ১০ টি YouTube চ্যানেলের ইনকাম
ইউটিউব থেকে আয় করার উপায়-২০২২

যা বাংলাদেশের ডাক ব্যবস্থাকেও প্রভাবিত করে। যাতে বাংলাদেশের ডাক বিভাগ অচল হয়ে পড়ে। ডাক বিভাগকে সচল রাখতে সরকার বাংলাদেশ ডাক বিভাগের জন্য ‘নগদ’ নামে একটি ডিজিটাল সেবা চালু করেছে। বর্তমানে ক্যাশ মোবাইল ব্যাংকিং এর সকল ডিজিটাল সেবা প্রদান করে।

নগদ একাউন্ট দেখার নিয়ম সমূহ

নগদ অ্যাকাউন্ট দেখার জন্য দুটি নিয়ম আছেনগদ-একাউন্ট-দেখার-নিয়ম

১) কোড ডায়াল করে ম্যানুয়াল নগদ অ্যাকাউন্ট দেখা

ক) নগদ অ্যাকাউন্ট দেখার কোড নম্বর: –
ক্যাশ অ্যাকাউন্ট দেখার কোড নম্বর হল *167#। মোবাইলের ডায়াল অপশনে গিয়ে এই কোড নম্বরটি ডায়াল করলেই ক্যাশ অ্যাকাউন্টের সব অপশন চলে আসবে। বিকল্পগুলি থেকে যে পরিষেবাগুলি প্রয়োজন যেমন: – ব্যালেন্স চেক, মোবাইল রিচার্জ, বিল পে, সেন্ড মানি, ক্যাশ আউট ইত্যাদি।

খ) নগদ অ্যাকাউন্ট ব্যালেন্স চেক করার নিয়ম: –
১.প্রথমে আপনাকে *167# ডায়াল করতে হবে।
২.অপশন 8 ‘My nagad’-এ যেতে আপনাকে ‘7’ লিখে উত্তর দিতে হবে।
৩.তারপর ‘ব্যালেন্স ইনকোয়ারি’-এ যেতে আপনাকে ‘1’ লিখে উত্তর দিতে হবে।
৪.পিন কোডটি দেওয়ার পরে অ্যাকাউন্টের বর্তমান ব্যালেন্স দেখাবে।

২) ক্যাশ অ্যাপ ব্যবহার করে অ্যাকাউন্ট দেখা:
অন্যান্য সকল মোবাইল ব্যাংকিং পরিষেবা প্রদানকারীর সাথে তাল মিলিয়ে চলতে এবং গ্রাহকদের সুবিধার্থে ক্যাশ তাদের নিজস্ব অ্যাপ ‘ক্যাশ’ অ্যাপও চালু করেছে। আপনার যদি নগদ অ্যাকাউন্ট থাকে তবে আপনি নগদ অ্যাপটি ব্যবহার করতে পারেন, আপনার অতিরিক্ত কিছুর প্রয়োজন নেই। এমনকি আপনার আগে কোনো নগদ অ্যাকাউন্ট না থাকলেও, আপনি ক্যাশ অ্যাপ ব্যবহার করে একটি নতুন অ্যাকাউন্ট খুলতে পারেন।

ক্যাশ অ্যাপের সুবিধা হল এর ফাংশনগুলি খুবই ব্যবহারকারী বান্ধব। যার কারণে যে কেউ সহজেই ক্যাশ অ্যাপটি ব্যবহার করতে পারবেন। অ্যাপের মাধ্যমে নগদ অ্যাকাউন্ট দেখার নিয়ম খুবই সহজ। অ্যাপে লগ ইন করার পর, আপনি ড্যাশবোর্ডের একেবারে উপরে থাকা ‘ট্যাপ ফর ব্যালেন্স’ বিকল্পে ক্লিক করে ব্যালেন্স দেখতে পাবেন। যেহেতু ক্যাশ অ্যাপে সমস্ত তথ্য একসাথে সহজে পাওয়া যায় তাই অ্যাপে লেনদেনের সময় ভুল হওয়ার সম্ভাবনা কম থাকে।

নগদ কল সেন্টার  নাম্বার

নগদ তাদের গ্রাহকদের প্রদত্ত পরিষেবার মান বাড়ানোর জন্য গ্রাহক যত্ন পরিষেবা প্রদান করে। ক্যাশ মোবাইল ব্যাংকিং কাস্টমার কেয়ার নম্বর হল 16167 এবং 09609616167। এই দুটি নম্বরে কল করলে নগদ সংক্রান্ত যেকোনো প্রশ্ন বা সমস্যার সমাধান হবে।নগদ গ্রাহক যত্ন পরিষেবাগুলি দিনে 24 ঘন্টা এবং সপ্তাহে 7 দিন উপলব্ধ। তাদের সেবার মান বাড়লে যেকোনো সমস্যা সহজেই সমাধান করা যায়। তাই নগদ মোবাইল ব্যাঙ্কিং সংক্রান্ত কোনও সমস্যার জন্য অন্য কাউকে জিজ্ঞাসা না করে ক্যাশ হেল্পলাইনে কল করুন।

নগদ মোবাইল ব্যাংকিং সঞ্চয়ের মাধ্যমে নগদ অ্যাকাউন্টের সুবিধা পাওয়ার নিয়ম
১. মাস শেষে মুনাফা দেওয়া হয়।
২. দিনের সংখ্যা গণনা করে মাস শেষে মুনাফা দেওয়া হয়।
৩. আইন অনুযায়ী নির্দিষ্ট পরিমাণ ভ্যাট কেটে নেওয়ার পর নগদ অ্যাকাউন্টে মুনাফা দেওয়া হয়।
৪. অ্যাকাউন্টে কোনো সমস্যা হলে ওই মাসে কোনো লাভ হয় না।
৫. নগদ যে কোনো সময় তাদের নগদ মোবাইল ব্যাংকিং প্রচারাভিযান বন্ধ করতে পারে.

এই ছিল নগদ একাউন্ট সম্পর্কে বিস্তারিত । আশা করছি আপনি বুজতে পেরেছেন নগদ একাউন্ট দেখার নিয়ম। লেখাটি যদি আপনার কাছে ভাল লাগে তাহলে ফেসবুকে শেয়ার করুন। ধন্যবাদ।

Leave a Comment

Your email address will not be published.